উৎসে কর কর্তন কি? এটা কিভাবে কাজ করে?




উৎসে কর কর্তন (Tax Deducted at Source) বা TDS হচ্ছে বাংলাদেশে কর্মরত কর্মজীবী মানুষের কাছ থেকে কর আদায় করার পরোক্ষ উপায়। বেতন ছাড়াও এই কর কর্তন কমিশন, ব্রোকারেজ, রয়্যালটি পেমেন্ট, চুক্তির ভিত্তিতে পরিশোধ, একাধিক আর্থিক বিনিয়োগের ক্ষেত্রে আয়কৃত সুদ বা মুনাফা, পেশাগত ফি ইত্যাদির ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হয়। বাংলাদেশের জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এই এটির ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে আছে।

এখন দেখি কেন উৎসে কর কর্তন গুরুত্বপূর্ণ?

একবারে বিশাল অঙ্কের  কর একবারে পরিশোধ করার বদলে, উৎসে কর কর্তনের বদৌলতে আয়ের সময়েই কর পরিশোধ করার সুযোগ পাচ্ছেন। আপনি যদি ভেবে থাকেন বেতনভোগী মানুষের জন্যে উৎসে কর কর্তন অপ্রয়োজনীয় বোঝা, তবে ব্যপারখানা ভালো করে ভেবে দেখেন। সবকিছু বিবেচনা করলে এই ব্যবস্থা সরকার এবং কর প্রদানকারী – উভয়ের পক্ষেই কাজ করে।

  • কর ফাঁকি দেয়ার সুযোগ থাকে না যেহেতু উৎসেই কর আদায় করা হয়।
  • এটা সরকারের জন্যে রাজস্বের একটা নিয়মিত খাত।
  • কর আদায়ের ক্ষেত্র বেড়ে যায় এর ফলে। অর্থাৎ কর প্রদানকারীকে কিছু না কিছু খাঁতে  উৎসে কর কর্তনের আওতায় কর প্রদান করতে হবে।
  • ব্যক্তিসত্ত্বার উপর কর প্রদানের চাপ কমিয়ে ফেলে।

উৎসে কর কর্তনের বিবরণ  

উৎসে কর কর্তনের হার সাধারণত সমগ্র বেতনের একটি নির্দিষ্ট অংশ হয়, এবং এটি সাধারণত ১% থেকে ৩০% এর মধ্যে থাকে। নিচে কিছু উদাহরণ দিচ্ছি আমি।

আয়ের উৎস                 যে হারে উৎসে কর কর্তন করা হবে
একজন ব্যক্তির বেতন    আয়কর অনুযায়ী
মেয়াদী সঞ্চয় এবং স্থায়ী সঞ্চয় যদি E-tin রেজিস্ট্রেশন করা থাকে তবে ১০%, যদি না থাকে তবে ১৫%। এক্ষেত্রে লভ্যাংশ হতে কর কর্তিত হবে। 
জমি বেচাকেনা   রিয়েল স্টেট ডেভেলপার জমির মালিককে যে পরিমাণ টাকা পরিশোধ করবে তাঁর ১৫% হারে উৎসে কর কর্তন হবে। 
কেটারিং সার্ভিস ১০%
সংগ্রহ ও পুনরুদ্ধার এজেন্সি  কমিশনের ১০%, রসিদ বাবদ মোট অর্থের ১.৫%
ক্লিনিং সার্ভিস কমিশনের ১০%, রসিদ বাবদ মোট অর্থের ১.৫%
ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট কমিশনের ১০%, রসিদ বাবদ মোট অর্থের ১.৫%
মিটিং ফি, প্রশিক্ষণ প্রোগ্রামের ফি বা অনারারিয়াম ১০%
মোটর গ্যারেজ বা ওয়ার্কশপ ৫%
ছাঁপাখানা ৩%
বেসরকারী নিরাপত্তা সংস্থা

কমিশনের ১০%, মোট প্রাপ্তির ১.৫%

পণ্য প্রক্রিয়াকরণ খরচ ১০%
শিপিং এজেন্সি কমিশন

৫%

জনশক্তি যোগান বাবদ কমিশনের ১০%, রসিদ বাবদ মোট অর্থের ১.৫%
পরিবহন মালিক ৩%

তথ্যসুত্রঃ www.nbr.gov.bd
এগুলো হচ্ছে সাধারণ কিছু কর কর্তনের ক্ষেত্র। বাংলাদেশের রাজস্ব বোর্ডের ওয়েবসাইটে সম্পূর্ণ তালিকা পাওয়া যাবে।

আচ্ছা এমন কোন খাত আছে কি যেখান থেকে কর কেটে নেওয়া হয় না?

হ্যাঁ, কিছু কিছু নির্দিষ্ট খাত আছে যেখানে উৎস হতে কর কর্তন করা হয় না।  বিশেষ করে ​উৎস হতে কর কর্তনের আওতাধীন নয় এমন সব সংস্থা। কোন কোন সংস্থা উৎস হতে কর কর্তনের আওতাধীন নয় তা রাজস্ব বোর্ডের ওয়েবসাইট থেকে জানা যাবে।

যে বিষয়গুলি মাথায় রাখা উচিৎ

উৎস হতে কর কর্তন হচ্ছে বলেই যে আয়কর ফেরত বাদ দিয়ে দিবেন এবং দাবীপত্র জমা দিবেন না, এমনটা কিন্তু নয়। উৎস হতে কর কর্তনের সাথে আয়করের দাবী জমার কোন সম্পর্ক নেই। এটা আপনাকে আলাদাভাবে করতে হবে অবশ্যই।

এছাড়াও যদি আপনার ক্ষেত্রে উৎস হতে কর কর্তনের হার যতটুকু হবার কথা, তাঁর চেয়ে বেশী হয়, এ ব্যপারে সঠিক তথ্য প্রদান করে বাড়তি দেয়া কর বাবদ অর্থ ফেরত পেতে পারেন।

তো, এই হচ্ছে ব্যপার। আশা করি উৎস হতে কর কর্তন বিষয়টা কি তা অনেকটাই পরিস্কার হয়ে গেছে।

 

Abdullah Amor এর ছবি

About the Author